পুঠিয়ায় ক্লাসরুমে ছাত্রীর সাথে অন্তরঙ্গ ছবি তোলা সেই শিক্ষক বহিস্কার

রাজশাহীর পুঠিয়া বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের ক্লাস রুমে স্কুল ড্রেস পরিহীত অবস্থায় ওই স্কুলের ১০ শ্রেনির ছাত্রীর সাথে আপত্তিকর অবস্থায় ছবি তোলা ও সেই ছবি সিডির মাধ্যমে সংরক্ষন করার অভিযোগে স্কুলটির কম্পিউটার শিক্ষক আবু সাইদকে সাময়িক বহিস্কার করেছে স্কুল পরিচালা কমিটি।

গতকাল বুধবার বিকেলে স্কুল পরিচালনা কমিটির এক জরুরি সভায় এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে  বলে  নিশ্চিত করেছেন বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আবদুস সাত্তার মন্ডল। একই অভিযোগ প্রমানিত হওয়ায় গত ২০ আগষ্ট মঙ্গলবার বিকেল সাড়ে ৫ টায় ওই শিক্ষক আবু সাইদকে (৩৫) ৭ দিনের কারাদণ্ড প্রদান করেন ভ্রাম্যমান আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ইউএনও মোছাঃ নাজমা নাহার।

বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটি সুত্রে জানা যায়, এ ঘটনার সাথে প্রত্ত্ক্ষ ও পরোক্ষ ভাবে জড়িত এই বিদ্যালয়ের আরও দুই শিক্ষকের নামও আসছে অভিযোগে। তবে ওই অভিযোগগুলো অতি গোপনে তদন্ত শুরু করছেন স্কুল পরিচালনা কমিটি।

পুঠিয়া বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুস সাত্তার মন্ডল জানান, কম্পিউটার শিক্ষক আবু সাঈদ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেনির এক স্কুলছাত্রীর সাথে ক্লাসরুমে স্কুল ড্রেস পরিহিত অবস্থায় আপত্তিকর ছবি তোলেন । এ অভিযোগে গতকাল (২৩ আগস্ট) বুধবার বিকেলে স্কুল ব্যবস্থাপনা কমিটির এক জরুরী সভার আহ্‌বান করা হয়। সভায় কম্পিউটার শিক্ষক আবু সাঈদের বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণিত ও আইনীভাবে সাজাপ্রাপ্ত হওয়ায় নিয়ম অনুসারে তাকে সাময়িক বহিস্কার করা হয়েছে। আর এ ঘটনার সাথে আর কোনো শিক্ষক জড়িত আছে কিনা তা খতিয়ে দেখছেন র্কতৃপক্ষ

নাম প্রকাশ না করা শর্তে বালিকা বিদ্যালয়ের ব্যবস্থাপনা কমিটির এক সদস্য বলেন, ছাত্রীদের সাথে শিক্ষকের এরকম ঘটনা খুবই দুঃখজনক। এই বিদ্যালয়ে শুধু আবু সাঈদ একাই নন, ছাত্রীদের দেয়া তথ্য মতে আরও দুজন শিক্ষক জড়িত আছেন। বিষয়গুলো নিয়ে স্কুল ব্যবস্থাপনা কমিটি অতি গোপনে তদন্ত শুরু করছেন।

তিনি আরো জানান, এছাড়াও স্কুলের ছাত্রীদের সাথে অন্তরঙ্গ অবস্থায় ছবি ও সেলফি তুলে বিভিন্ন যোগাযোগ মাধ্যমে প্রকাশ ও প্রচারের অভিযোগও রয়েছে স্কুলের শিক্ষকের বিরুদ্ধে। অভিযোগুলো প্রমাণিত হলে সেই সব শিক্ষকদের বিরুদ্ধে প্রাতিষ্ঠানিক এবং আইনী ব্যবস্থা নেয়া হবে।

প্রসঙ্গত, পুঠিয়া বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের কম্পিউটার শিক্ষক আবু সাঈরের বিরুদ্ধে গত ২২ আগস্ট ওই স্কুলের ১০ম শ্রেণির এক ছাত্রীর সাথে স্কুলের ক্লাস রুমে আপত্তিকর অবস্থায় ছবি তোলা ও সেই ছবি সিডিতে সংরক্ষন করে রাখেন। এমন অভিযোগের ভিত্তিতে ওই দিন বিকেলে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও ভ্রাম্যমান আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোছাঃ নাজমা নাহারের ভ্রাম্যমাণ আদালতে দোষ স্বীকার করায় তাকে ৭ দিনের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেয়া হয়।

Advertisements

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out /  Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  Change )

Connecting to %s